Home / জাতীয় / ব্যাংকের টাকা লুটকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই

ব্যাংকের টাকা লুটকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই

যমুনা নিউজ বিডি ঃ ইচেছ করে যারা ব্যাংকের টাকা লুট করেছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাইলেন ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতির ফেডারেশন এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন। তিনি বলেন, কিছু স্বার্থন্বেষী মহলের কারণে ব্যাংকিং খাত এ ধরনের বিশৃঙ্খলা দেখা দিয়েছে। যা আমাদের নীতির সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়।

গতকাল শনিবার রাজধানীর মতিঝিলে ফেডারেশনের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এফবিসিসিআই সভাপতি এ কথা বলেন। ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত জাতীয় বাজেটের উপর মতমত দিতে এফবিসিসিআই এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, এফবিসিসিআইয়ের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম, সহসভাপতি মুনতাকিম আশরাফ এবং এফবিসিসিআইয়ের অন্য পরিচালকরা।

সংবাদ সম্মেলনে এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, ব্যাংক খাতের এসব অনিময় আমাদের নীতির সঙ্গে যায় না। তাই আমরা ব্যাসিক ব্যাংক, ফারমার্স ব্যাংকের মতো অন্য যেসব ব্যাংকে লুটপাট হয়েছে তাদের বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাচিছ। যেন এখাতে সুশাসন বজায় থাকে।

এক সময় লুটপাটকারীদের কোনো বিচার না হলেও বর্তমানে এরা বিচারের আওতায় আসছে উল্লেখ  করে এফবিসিআই সভাপতি আরো বলেন, একসময়  ব্যাংকের টাকা লুটকারীদের অপরাধে কোনো বিচার হতো না,  একটা বিচারহীনতার সংস্কৃতি তৈরী হয়েছিল। তবে এ অবস্থার অনেক উন্নতি হয়েছে। বর্তমানে অনেক রাঘব-বোয়ালসহ সাংসদরাও বিচারের আওতায় আসছে।

ঘাটতি বাজেট মিটাতে ব্যাংক খাতের উপর নির্ভরশীলতা উৎপাদনশীল খাতকে ক্ষতিগ্রস্থ করতে পারে উল্লেখ করে শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন  বলেন, জিডিপি-র প্রবৃদ্ধি বাড়াতে হলে বেসরকারি বিনিয়োগ অত্যন্ত জরুরি। তাই ব্যাংকিং খাত থেকে সরকারের  ঋণ নেয়ায় প্রবণতা বেসরকারি খাতের ঋণ প্রাপ্তির ক্ষেত্রে বাড়তি চাপ তৈরি করবে। এর ফলে ব্যাংকের সুদের হারও বেড়ে যাবে।  আর উচ্চ সুদের কারণে খেলাপি ঋণের হারও বেড়ে যাচেছ বলে তিনি  সংবাদ সম্মেলনে মন্তব্য করেন।

ব্যাংকের মতো অন্যখাতেও কর্পোরেট কর কমানোর তাগিদ দিয়ে শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন  বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যাংকিং খাতে আড়াই শতাংশ করপোরেট কর কমানো হয়েছে। আমরা আশা করছি এরফলে ব্যাংকের সুদের হার কমে এক অংকে আসবে। এছাড়া অন্যখাতেও এই কর কমানোর পরামর্শ  দেন তিনি।  এরফলে দেশে বিনিয়োগ বাড়বে । আর বিনিয়োগ বাড়লে কর্মসংস্থানও বাড়বে।

দেশের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি এবং কর্মসংস্থানে পোশাক খাতের অবদানের গুরুত্ব বিবেচনায় নিয়ে করপোরেট কর ১২ শতাংশ ও সবুজ কারখানার ক্ষেত্রে আগের মতো ১০ শতাংশ বহাল রাখার দাবি জানান তিনি।

এছাড়া  পোশাক শিল্পের উৎপাদন সংশ্লিষ্ট পণ্য সরবরাহের সঙ্গে সংযুক্ত খাতে ভ্যাট প্রত্যাহারের আহবান জানিয়ে শফিউল ইসলাম বলেন, শতভাগ রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান হিসেবে তৈরী পোশাক শিল্পের উৎপাদন সংশ্লিষ্ট পণ্য সরবরাহের ক্ষেত্রে ভ্যাট অব্যাহতি চালু আছে। কিন্তু ল্যাবরেটরি টেস্টিং চার্জ, গাড়ি বা যন্ত্রাংশ, পেশাগত ব্যায়, মালামাল লোডিং আনলোডিং ও শ্রমিকদের যাতায়াতে ব্যবহৃত পরিবহন ব্যায়সমূহে মুসক অর্ন্তভুক্ত থাকায় পণ্য রপ্তানি ব্যয় বেড়ে যাচেছ। তাই এসবখাতে মূসক প্রত্যাহার এবং রিটার্ন দাখিল থেকে অব্যাহতি দেয়ার প্রস্তাব করছি।

বাজেট বাস্তবায়নের ওপর অধিক গুরুত্ব দেওয়ার তাগিদ দিয়ে এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন,  বাজেট বাস্তবায়নে বছরের শুরুতে সুষ্ঠু তদারকির ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। এটা করা না  গেলে বাজেট বাস্তবায়ন কঠিন হয়ে পড়েব। তিনি  বলেন, এরফলে বাজেট  দেয়ার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য ব্যহত হবে।

Check Also

কুমিল্লার মামলায় খালেদার জামিন শুনানি ৩০ সেপ্টেম্বর

যমুনা নিউজ বিডি ঃ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে দুর্বৃত্তদের পেট্রল বোমায় বাসের আট যাত্রী হত্যা মামলায় বিএনপি …

Powered by themekiller.com