Home / নারী ও শিশু / বিয়ের দুদিন পর শ্বশুরবাড়ির পুকুরে মিলল নববধূর লাশ

বিয়ের দুদিন পর শ্বশুরবাড়ির পুকুরে মিলল নববধূর লাশ

যমুনা নিউজ বিডি ঃ ঢাকার দোহার উপজেলার উত্তর জয়পাড়ার মিয়াপাড়া এলাকায় বিয়ের দুইদিন পর শ্বশুরবাড়ির পুকুর থেকে কলসিতে বাধা অবস্থায় শিখা আক্তার (১৮) নামে এক নববধূর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

গতকাল সোমবার সন্ধ্যার দিকে দোহার থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ও চারজনকে আটক করে। এ ঘটনাকে পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড দাবি করে মঙ্গলবার বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছে নিহতের স্বজনরা।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার উপজেলার দোহার ঘাটা এলাকার কুয়েত প্রবাসী মো. সিরাজের মেয়ে শিখা আক্তারের সাথে একই উপজেলার উত্তর জয়পাড়া মিয়াপাড়া এলাকার মনোয়ার হোসেন মানুর ছেলে রুহুল আমিনের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। শনিবার ছেলের বাড়িতে বিয়ের বৌভাত অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। রবিবার রাত থেকে শিখা নিখোঁজের সংবাদ পাওয়া গেলে তাকে সবাই খোঁজাখুজি শুরু করে। এলাকাবাসীর সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার সন্ধ্যার দিকে শ্বশুরবাড়ির পুকুরের কচুরিপানার নিচ থেকে গলায় কলসি বাধা শিখার লাশ উদ্ধার করে দোহার থানা পুলিশ।

লাশ উদ্ধারের পরপরই শিখার আত্মীয় স্বজন ও এলাকার লোকজন উত্তর জয়পাড়া এলাকায় ছেলের বাড়ি ছুটে গেলে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় শিখার শ্বাশুরী আসমা বেগম, ভাসুর মো. খোকন এবং মারিয়া ও মোহনা নামে চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

এদিকে এ ঘটনাকে পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড দাবি করে মঙ্গলবার সকালে থানার সামনে বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী। এ ঘটনায় শিখার মা রুনু বেগম বাদি হয়ে পাঁচজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। ঘটনার পর থেকে শিখার স্বামী রুহুল আমিন পলাতক রয়েছে।

শিখার মা রুনু বেগম অভিযোগ করেন, আমার মেয়েকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। বিয়ের রাত থেকে ওই বাড়ির লোকজন আমার মেয়েকে যৌতুকের জন্য চাপ দিয়ে আসছিল।

দোহার থানা ওসি সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেছি। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে চারজন গ্রেপ্তার হয়েছে। লাশের ময়না তদন্ত করা হয়েছে। অন্যান্য আসামিদের অচিরেই গ্রেপ্তার করা হবে।

Check Also

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটে জালিয়াতির প্রমাণ পাওয়া গেছে

যমুনা নিউজ বিডি: সম্প্রতি শেষ হওয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ডিজিটাল জালিয়াতির প্রমাণ …

Powered by themekiller.com