Home / রাজনীতি / পুলিশি ব্যারিকেড ভেঙে কোকো’র কবর জিয়ারত বিএনপি নেতাদের

পুলিশি ব্যারিকেড ভেঙে কোকো’র কবর জিয়ারত বিএনপি নেতাদের

যমুনা নিউজ বিডিঃ পুলিশি বাধার মুখেও নেতাকর্মীর বহর ছাড়াই বিএনপির কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় নেতা দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর কবর জিয়ারত করেছেন।

এদিন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকনসহ একাধিক নেতাকে ঢুকতে দেয়া হয়নি কবরস্থানে। তিনি বাইরে দাঁড়িয়েই মরহুম আরাফাত রহমান কোকের জন্য মোনাজাত করেন। এসময় দলের অন্যান্য অনেক নেতাকর্মীকেও সমাধিস্থলের প্রবেশ গেটের বাইরে দাঁড়িয়ে মোনাজাত করতে দেখা যায়।

আরাফাত রহমান কোকোর ৫১তম জন্মদিন উপলক্ষে বুধবার (১২ আগস্ট) সকাল ১০টায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানের নেতৃত্বে বনানী কবরস্থানে মরহুমের কবর জিয়ারত করতে যান বিএনপি ও দলটির অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের শত শত নেতাকর্মী।

এসময় বনানী কবরস্থানের সামনে অবস্থান নিয়ে পুলিশ নেতা-কর্মীদের ভেতরে যেতে বাধা প্রদান করে। পরে বিশেষ অনুরোধে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক শরফুদ্দিন সপু, ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল, শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসাইন ও ছাত্রদল সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ফুল নিয়ে সমাধিস্থলে প্রবেশের অনুমতি পান।

কবরস্থানে গিয়ে নেতৃবৃন্দ ফুল দিয়ে প্রয়াত কোকোর প্রতি শ্রদ্ধা জানান এবং মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করেন। একই সময়ে কবরস্থানের বাহিরে থাকা অসংখ্য নেতাকর্মীও দোয়া ও মোনাজাত করেন।

এসময় কবরস্থানের গেটের বাহিরে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির যুগ্ন মহাসচিব খাইরুল কবির খোকন, সহ-জলবায়ুবিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং কর্মকর্তা শামসুদ্দিন দিদার, শায়রুল কবির খান, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল, সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণ, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল ও সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিন প্রমুখ।

১৯৬৯ সালের ১২ আগস্ট তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের (বর্তমান বাংলাদেশ) কুমিল্লায় আরাফাত রহমান কোকোর জন্ম। আরাফাত রহমান শর্মিলা রহমানকে বিয়ে করেন। তাদের দুই মেয়ে হয় যাদের নাম জাহিয়া রহমান ও জাফিয়া রহমান।

২০১৫ সালের ২৪ জানুয়ারি মালয়েশিয়ায় হৃদরোগে আক্রান্ত হন আরাফাত রহমান কোকো। ওই দিন বাংলাদেশ সময় দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে অসুস্থ অবস্থায় মালয়েশিয়ার ন্যাশনাল হাসপাতালে নেয়ার পথে মাত্র ৪৫ বছর বয়সে মারা যান তিনি। পরে ২৮ জানুয়ারি তার মরদেহ দেশে আনা হয়। ওই দিনই বনানী কবরস্থানে চিরঘুমে শায়িত হন জিয়া-খালেদা দম্পতির ছোট ছেলে।

Check Also

বাংলাদেশে এখন কোনো গণতন্ত্র নেই : ফখরুল

যমুনা নিউজ বিডিঃ বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করাই বিএনপির একমাত্র লক্ষ্য মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব …

error: Content is protected !!
%d bloggers like this:

Powered by themekiller.com