Breaking News
Home / সারাদেশ / রাজশাহী বিভাগ / পাবনায় প্রবাসীর বাড়িতে সন্ত্রসীদের হামলা, ভাঙচুর, ককটেল বিস্ফারণ

পাবনায় প্রবাসীর বাড়িতে সন্ত্রসীদের হামলা, ভাঙচুর, ককটেল বিস্ফারণ

পাবনা প্রতিনিধি ঃ পাবনার সুজানগর উপজেলায় গভীর রাতে অর্ধশতাধীক সন্ত্রাসী কর্তৃক এক ইতালি প্রবাসীর বাড়িতে, হামলা, ভাঙচুর ও ককটেল বিষ্ফোরনের ঘটনা ঘটেছে।

এ সময় বাড়িতে থাকা নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকারসহ, যাবতীয় আসবাবপত্র লুটপাট করেছে মুখোসধারী কতিপয় সন্ত্রাসীরা। এ বিষয়ে সুজানগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে পরিবারটি।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায় সোমবার (১৯ মার্চ ২০১৯) আনুমানিক রাত সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলার
সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের ভাটপাড়া গ্রামের ইতালি প্রবাসী আব্দুর রাজ্জাকের বাড়িতে এলাকার প্রভাবশালী নেতা ও কলেজ শিক্ষক দয়াল’র নেতৃত্বে প্রায় অর্ধশতাধীক সন্ত্রাসী বাহিনীকে নিয়ে গভীর রাতে হামলা চালিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ৪ টি ঘর কুপিয়ে ভাঙচুুর করে, টিভি, ফ্রিজ, আলমারি, সুকেচ, দুইটি লাগেজসহ ইতালি থেকে আনা ৫ ভরি স্বর্ণ ও ৭ ভরি রোপ্যসহ প্রায় ১৫ লক্ষাধীক টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায় অস্ত্রধারীরা।

হামলার শুরুতে সন্ত্রাসীরা পর পর ৪ টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় এর ফলে বাড়িতে থাকা লোকেরা পিছন গেট দিয়ে পালিয়ে জীবন রক্ষা পেলেও প্রবাসীর বৃদ্ধা মা আনোয়ারা বেগম পালাতে না পারায় পায়ে চাপাতি দিয়ে কোপ দিলে মারাত্বক আহত হলে
হাসপাতালে নিয়ে ১০ টি সেলাই দেওয়া হয়। বর্তমানে আহত অবস্থায় তিনি বাসার বিছানায় পরে আছেন।
ঘটনার কারণ হিসেবে জানা গেছে দয়াল এবং ইতালি পরিবারের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে নেতৃত্বের দ্বন্দ ছিল, এক পরিবার সাবেক এমপি আজিজুল হক আরজু গ্রুপ আর অন্য পরিবার বর্তমান এমপি আহমেদ ফিরোজ কবির গ্রুপ করে।
এলাকায় গিয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২০১৪ সালে স্থানীয় শুকুর মন্ডলের ছেলে আমজাদ প্রায় ৪ কাটা জায়গা বিক্রি করতে চায় আপন ভাই মনসুরের নিকট, সেই সময় কাছে টাকা না থাকায় এবং দয়াল নেতার বাধায় জমি নিতে পারে নাই আপন ভাই মনছুর। এবং দয়াল বলে ভাইয়ের থেকে আবার জমি নিতে হবে টাকা দিয়ে?
সেই সময় সময় ইতালি প্রবাসীর পরিবার মসজিদ নির্মাণের জন্য জমিটি ক্রয় করে, সেই সাথে মসজিদ যেহেতু নির্মাণ হবে সেই জন্য বিক্রেতা আরো এক কাটা জমি দান করে। সেখান থেকেই মূলত দুটি পরিবারে বিরোধ চলে আসছিল। তারই যের ধরে সেদিন রাতে দলবল নিয়ে অবৈধ অস্ত্র, চাপাতি, হকিস্টিক আর রামদা নিয়ে নিরিহ পরিবারটির উপর নৃশংস হামলা চালায়।
এ দিকে ঘটনার পর থানায় মামলা দিতে গেলেও মামলা রেকর্ড হয়নি। এবং হামলা কারিরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং নির্যাতিত পরিবারকে বিভিন্নভাবে হুমকি ধামকি দিচ্ছে।
ভুক্তভোগী প্রবাসীর মাতা আনোয়ারা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে সাংবাদিকদের জানান আমার ছাওয়াল এতদিন যা কামাই করছিল সব শেষ করে দিল এই সন্ত্রাসীরা। অতিদ্রুত থানায় মামলা নিয়ে আসামীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার জোর দাবি জানান।

এ বিষয়ে সুজানগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শরিফুল আলম ঘটনার সত্যতা নিষ্চিত করে জানান, ১৮
তারিখের উপজেলা নির্বাচনের দিন সকালে তাদের দু পরিবারের মাঝে মারামারি সংঘর্ষ হয়, এরই জেরে রাতে অপর পক্ষের লোকজন তাদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বিভিন্ন মালামাল ভাঙচুর করে, বাড়ি কুপায়, এবং বৃদ্ধার পায়ে একটি কোপ লাগে। তাদের মধ্যে মূলত নেতৃেত্বের দ্বন্দ বিরাজ করে আসছিল।
তিনি আরো বলেন দু-পক্ষের মিমাংশা করার জন্য এমপি সাহেব বসবেন, যদি মিমাংশা না হয় তাহলে অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা নেওয়া হবে।

Check Also

বগুড়ায় শাহীন হত্যা মামলার প্রধান আসামি আমিনুল ইসলাম গ্রেফতার

নয়ন রায়,বগুড়া : বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও পরিবহন ব্যবসায়ী আ্যডভোকেট মাহবুব আলম …

Powered by themekiller.com