Breaking News
Home / জাতীয় / নারীদের শিক্ষার বিরুদ্ধে আহমদ শফীর বক্তব্যের প্রতিবাদ ও নিন্দা

নারীদের শিক্ষার বিরুদ্ধে আহমদ শফীর বক্তব্যের প্রতিবাদ ও নিন্দা

যমুনা নিউজ বিডি:   হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী মেয়েদের স্কুল-কলেজে না পাঠানোর জন্য বিভিন্ন স্থান থেকে আসা মাদ্রাসার সাবেক শিক্ষার্থী ও স্থানীয় লোকজনকে যে ওয়াদা করিয়েছেন তা সম্পূর্ণভাবে অগ্রহণযোগ্য। বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘের (বিএনপিএস) পক্ষ থেকে ওই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলা হয়েছে, নারীর কাজ শুধু কোনো পুরুষের স্ত্রী হওয়া, স্বামীর টাকাপয়সার হিসাব করা ও চিঠি লেখা, যেজন্য তাদের ফোর-ফাইভ পর্যন্ত পড়লেই যথেষ্ট! আল্লামা শফীর এ বক্তব্য নারীর ক্ষমতায়ন ও নারী-পুরুষ সমতার যে অগ্রযাত্রা দেশে সূচিত হয়েছে, তাকে নেতিবাচকভাবে প্রভাবিত করবে।

রবিবার বিএনপিএস’র নির্বাহী পরিচালক মুক্তিযোদ্ধা রোকেয়া কবীর স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল আহমদ শফীর এই বক্তব্যকে ‘ব্যক্তিগত’ আখ্যা দিয়েছেন। আমরা মনে করি, উপমন্ত্রী তাঁর স্বভাবসুলভ ভদ্রতা ও মুরব্বিদের প্রতি সম্মানবশত এমন বললেও আমরা নারী সমাজ বিষয়টাকে ‘ব্যক্তিগত’ বিবৃতির মতো অতটা নীরিহভাবে দেখতে পারি না। কারণ শাহ আহমদ শফীর মতো ব্যক্তির এ ধরনের বক্তব্য নারীবিরোধী সামাজিক মনস্তত্ত্বকেই আরো জোরদার করবে। এই বক্তব্যের বিরুদ্ধে জোরদার অবস্থান না নিলে যারা সারাদেশে নারীবিরোধী ওয়াজ করে বেড়ান, জুমার নামাজের পর মসজিদে-মসজিদে নারীবিরোধী খুতবা দেন তাঁরাও বিশেষভাবে উৎসাহিত হবেন।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মাওলানা আহমদ শফীর এই অবস্থান সুস্পষ্টভাবে বাংলাদেশের সংবিধান ও মুক্তিযুদ্ধের মূল্যবোধের বিরোধী। এটি বিরোধিতা করে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সনদ এবং নারীর প্রতি সকল প্রকার বৈষম্য বিলোপের জন্য প্রণীত সিডও সনদেরও। সংবিধানের সমতা প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকারকে শিরোধার্য করে দেশে যেসব আইন ও নীতি প্রণীত হয়েছে, আহমদ শফীর আহ্বান সেগুলোর সঙ্গেও অসামঞ্জস্যপূর্ণ। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য বাস্তবায়নে যেখানে নারীসহ সকল পশ্চাদপদ জনগোষ্ঠীকে ক্ষমতায়িত করা দরকার, সেখানে তাঁর এই বক্তব্য নারীদের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে যাওয়া এবং দক্ষ কর্মী হিসেবে গড়ে ওঠার বিরুদ্ধে নেতিবাচক ভূমিকা রাখবে।

মহিলা ফোরাম : সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রওশন আরা রুশো ও সাধারণ সম্পাদক শম্পা বসু এক যুক্ত বিবৃতিতে সংবিধান পরিপন্থী নারী বিদ্বেষী বক্তব্য দানকারী শফী হুজুরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন। তারা বলেছেন, তার ওই বক্তব্যের ফলস্বরূপ স্কুল, কলেজ পড়ুয়া মেয়েরা নিরাপত্তাহীনতায় পরতে পারে এবং মেয়েদের স্কুল-কলেজ আক্রান্ত ও ছাত্রীরা হয়রানীর শিকার হতে পারে। এর আগেও এই হুজুর নারী সমাজকে অবমাননা করে তাদেরকে তেতুলের সাথে তুলনা করে বক্তব্য দিয়েছিলেন।

শ্রমজীবি নারী মৈত্রী : শ্রমজীবি নারী মৈত্রীর সভাপতি বহ্নিশিখা জামালী ও সাধারণ সম্পাদক রাশিদা বেগম এক বিবৃতিতে হেফাজতে ইসলামের আমীর শাহ আহম্মদ শফীর নারী শিক্ষা ও নারী বিদ্বেষী বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। তারা বলেছেন, তার এই বক্তব্য এক দিকে চরম উদাত্ত মূলক ও সংবিধান ও রাষ্ট্র বিরোধীতার সামিল। তাই অনতিবিলম্বে আহম্মদ শফীর এই বক্তব্যের জন্য দেশবাসীর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে এই বক্তব্য প্রত্যাহার করতে হবে। নারী অধিকার ও নারী মর্যাদার পরিপন্থী বক্তব্য ও তৎপরতার বিরুদ্ধে নারী সমাজসহ দেশবাসীকে প্রতিরোধ জোরদার করার আহবান জানিয়েছেন।

Check Also

পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ আজ

যমুনা নিউজ বিডি:আজ পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ। বাংলাদেশ সময় সকাল ৮টা ৩৬ মিনিট ৩০ সেকেন্ডে উপচ্ছায়ায় চাঁদের …

Powered by themekiller.com