Home / সারাদেশ / নবজাতক ও প্রসূতি মৃত্যুর অভিযোগ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে

নবজাতক ও প্রসূতি মৃত্যুর অভিযোগ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে

যমুনা নিউজ বিডি: মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার টেকেরহাট নিউ জমজম হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও সিটি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় পৃথক ঘটনায় একদিনের ব্যবধানে নবজাতক ও প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ও সোমবার রাতে। এ দুটি মৃত্যুর ঘটনা ধামাচাপা দিতে প্রভাবশালীরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানা গেছে।

এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগে জানা যায়, মঙ্গলবার বিকাল ৩ টার দিকে রাজৈর উপজেলার কদমবাড়ী ইউনিয়নের মহিষমারী গ্রামের মন্তোষ সরকারের স্ত্রী মঞ্জু সরকারের প্রসব বেদনা হলে টেকেরহাট নিউ জমজম হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক পংকজ কুমারের সাথে যোগাযোগ করে ১০ হাজার টাকা চুক্তিতে সিজারের জন্য ভর্তি করা হয়। পরে সন্ধ্যায় তাকে সিজার করলে জীবিত পুত্র সন্তানের জন্ম হয়।

মঞ্জু সরকারের স্বামী মন্তোষ জানান, এ সময় নবজাতকের কান্নার শব্দ ওটির বাহির থেকে শোনা যাচ্ছিল। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নবজাতককে মৃত বলে ঘোষণা করে। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে হাসপাতালের আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে এসে হট্রগোল শুরু করে। পরিস্থিতি সামাল দিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ খালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান হামিদুল শাহ আলমকে খবর দেয়। সে এসে বিচারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, সিজার ফাইলে ভর্তি ফরম পুরণ ছাড়া বাকি কাগজপত্রে ডাক্তার বা সহকারীদের কোনো নাম ঠিকানা নাই।

এ ব্যাপারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের একজন পংকজ কুমার মন্ডল জানায়, ডা. আঞ্জুমান আরা বেগম (মনি) সিজার করেছে। প্রসূতি মঞ্জু সরকারের দেবর সন্তোষ সরকার জানায়, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় আমার ভাতিজার মৃত্যু হয়েছে। আমি এ ঘটনার প্রকৃত বিচার চাই। এভাবে যেন আর কোনো মায়ের কোল খালি না হয়। প্রসূতি মঞ্জু সরকারের স্বজনরা অভিযোগ করে জানান, সাংবাদিকসহ অন্যান্যদের জানানোর কারণে পংকজ আমাদের অব্যাহতভাবে হুমকি দিচ্ছে।

এদিকে সোমবার রাতে টেকেরহাট সিটি হাসপাতালে নিলা বেগম নামে এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার নরারকান্দি গ্রামের মেরাজ শেখের স্ত্রী নিলা বেগমের প্রসব বেদনা হলে তাকে সিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে সিজারের পর তার কন্যা সন্তান হয়। পরে প্রসূতির অবস্থা গুরুতর হলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গভীর রাতে নিলাকে ফরিদপুর মেডিক্যালে কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেয় এবং সেখানে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

এ ব্যাপারে রাজৈর উপজেলা প্রাইভেট হসপিটাল ও ডায়াগনস্টিক মালিক  সমিতির সভাপতি মো. জাকির হোসেন হাওলাদার জানান, মৃত্যু কারো কাছেই কাম্য নয়। অপারেশনের ক্ষেত্রে ক্লিনিকগুলির আরো সতর্ক হওয়া উচিত।

রাজৈর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. প্রদীপ চন্দ্র মণ্ডল জানান, বিগত স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান ক্লিনিক ব্যবসার অসংগতি নিয়ন্ত্রণে সিভিল সার্জনকে নিদের্শনা দিয়েছিলেন। তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেব।

মাদারীপুর সিভিল সার্জন ডা. ফরিদ হোসেন মিয়া টেলিফোনে জানান, অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে

Check Also

শিবগঞ্জের মাঝিহট্টে প্রতিপক্ষের মারপিটে দুই জন আহত অতঃপর থানায় অভিযোগ

যমুনা নিউজ বিডি: বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার মাঝিহট্টে প্রতিপক্ষের মারপিটে মহিলাসহ আহত-২ অতঃ পর থানায় অভিযোগ। অভিযোগ …

Powered by themekiller.com