Breaking News
Home / নারী ও শিশু / জলঢাকায় গৃহবধূ নির্যাতনের শিকার

জলঢাকায় গৃহবধূ নির্যাতনের শিকার

যমুনা নিউজ বিডি: নীলফামারীর জলঢাকায় পাষণ্ড স্বামীর অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়ে এক গৃহবধূ এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। নির্যাতিতা ওই গৃহবধূর নাম ইসমোতারা। ঘটনাটি উপজেলার শৌলমারী চাকলাপাড়া এলাকার সিংড়িয়া গ্রামের।

জানা যায়, কৈমারী ইউনিয়নের মৌজা শৌলমারী গ্রামের আব্দুল লতিফের মেয়ে ইসমোতারা। ৯ বছর আগে পাশ্ববর্তী শৌলমারী ইউনিয়নের চাকলা পাড়া সিংড়িয়া গ্রামে আব্দুল মজিদের ছেলে ধনাই হোসেনের সাথে বিয়ে হয়। তাদের ছয় বছর বয়সের একটি মেয়ে ও তিন বছর বয়সের একটি ছেলে সন্তান আছে।

গৃহবধূ ইসমত আরা জানান, শুক্রবার বিকেলে সবজি বাগানে কে বা কারা লাউ গাছ তুলে নিয়ে যায়। সে বিষয়কে কেন্দ্র করে আমার শ্বাশুড়ী আকলিমা ও ননদ মনোয়ারা আমাকে দোষারোপ করে। এক পর্যায়ে গায়ে হাত তোলে। সে সময় আমার স্বামী বাড়িতে ছিলেন না। পরে আমার স্বামী বাড়িতে আসলে আমি তাকে বিষয়টি বলার চেষ্টা করি। কিন্তু সেখানে বাঁধা হয়ে দাড়ায় আমার শ্বাশুড়ী ও ননদ। তাদের কথা মতো আমাকে এলোপাথারী মারতে থাকে আমার স্বামী। পরে তারা আমাকে চিকিৎসা পর্যন্ত নিতে দেয়নি বরং নজরবন্দী করে রাখে। কারো সাথে কথা বলাও বন্ধ করে দেয়। লাঠির আঘাতের ব্যাথা সহ্য করতে না পেরে আজ তাদের চোখ ফাঁকি দিয়ে চলে এসেছি বাবার বাড়িতে। তারা আমার অবস্থা দেখে হাসপাতালে ভর্তি করান। আমি এই নির্যাতনের বিচার দাবি করছি।

ঘটনার বিষয়ে কৈমারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রেজাউল হক বাবু বলেন, ওই গৃহবধূ আমার কাছে এসেছিল। কিন্তু এমন নির্দয় নির্যাতন কখনো দেখিনি। আমি তাকে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছি।

জলঢাকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ডা. আবু তাহের জানান, তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের দাগ আছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Check Also

দূর্গম পাহাড়ে স্বেচ্ছাশ্রমে নির্মিত হলো ১০ কি:মি: রাস্তা

আলমগীর মানিক,রাঙামাটি থেকে: সরকারী উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর দৃষ্টির বাইরে থাকা দুর্গমাঞ্চলের ১০ গ্রামের বাসিন্দারা …

Powered by themekiller.com