Home / জাতীয় / ‘জনগণের সেবায় সবসময় আমাদের সহযোগিতা থাকবে’

‘জনগণের সেবায় সবসময় আমাদের সহযোগিতা থাকবে’

যমুনা নিউজ বিডি:  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা এক হাতে অর্থ উপার্জন করতেন, আরেক হাতে বিলিয়ে দিতেন। মেয়েদের শিক্ষায়, চিকিৎসায় তিনি অর্থদান করেছেন। মানুষকে মানুষের মতো বেঁচে থাকার সুযোগ করে দিয়েছেন। কুমুদিনী ট্রাস্টের মাধ্যমে অনেক কাজ করা হচ্ছে। জনগণের সেবায় সবসময় আমাদের সহযোগিতা থাকবে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে কুমুদিনী কমপ্লেক্সে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা স্মারক স্বর্ণপদক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

সকাল ১১টায় হেলিকপ্টারে করে কুমুদিনী হাসপাতাল মাঠে পৌঁছান। সেখানে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্টের পরিচালক রাজীব প্রসাদ সাহা। পরে কুমুদিনী কমপ্লেক্সের প্রধান ফটকের সামনে পধানমন্ত্রীর সম্মানে জেলা পুলিশ গার্ড অব অনার প্রদান করে। প্রধানমন্ত্রী কুমুদিনী হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে সাড়ে এগারোটার দিকে ভারতেশ্বরী হোমস ফটকের সামনে মির্জাপুর উপজেলার তিনটি উন্নয়নকাজসহ জেলার ৩১টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এ সময় ছোট বোন শেখ রেহানা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখানে আসতে পেরে আজ সত্যি নিজেকে ধন্য মনে করছি। ১৯৭১ সালে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী যে গণহত্যা চালিয়েছিল, মা বোনদের ওপর অত্যাচার চালিয়েছিল, গ্রামের পর গ্রাম জ্বালিয়ে দিয়েছিল, সেই একাত্তর সালের ৭ মে হানাদাররা নারায়ণগঞ্জের কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট থেকে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা ও তার একমাত্র পুত্র ভবানী প্রসাদ সাহাকে ধরে নিয়ে হত্যা করে লাশ গুম করে। তাদের পরিবার আর কখনোই তাদের ফিরে পায়নি। স্বজন হারানোর বেদনা যে কত কঠিন, এই বেদনা যে কত যন্ত্রণাদায়ক সেটা আমরা বুঝতে পারি।

শেখ হাসিনা বলেন, স্বজন হারানোর বেদনা নিয়েই আমার যাত্রা শুরু। একটাই আলো ছিল, জনগণের ভালোবাসা। সেটা নিয়েই কাজ করছি। মনে রেখেছি বাবা কী করতে চেয়েছিলেন। তার কাজের একটুকুও যদি আমি করতে পারি সেটাই হবে আমার বড় সাফল্য। বিশ্ব বাংলাদেশকে এখন উন্নয়নের রোলমডেল হিসেবে দেখে। আমরা আরো অনেকদূর এগিয়ে যেতে চাই।

কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট অব বেঙ্গল (বিডি) আয়োজিত প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে অনুষ্ঠানস্থলে প্রবেশের আগে ভারতেশ্বরী হোমস ফটকে জেলার ৩১টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী।

পরে প্রধানমন্ত্রী দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা স্মারক স্বর্ণপদক প্রদান অনুষ্ঠানে যোগ দেন। কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্টের (শিক্ষা) পরিচালক প্রতিভা মুৎসুদ্দির সভাপতিত্বে প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও বক্তৃতা করেন কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজীব প্রসাদ সাহা, পরিচালক শ্রীমতি সাহা।

প্রধানমন্ত্রী তার বক্তৃতার আগে চার বিশিষ্ট ব্যক্তিকে রণদা প্রসাদ সাহা স্মারক স্বর্ণপদক দেন। পদক প্রাপ্তরা হলেন পূর্ব পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী (মরণোত্তর), জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম (মরণোত্তর), নজরুল গবেষক প্রফেসর রফিকুল ইসলাম ও বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী শাহবুদ্দীন।

এ সময় কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি, স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য, স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মো. মুরাদ হোসেন, গোপালপুর-ভূয়াপুরের এমপি তানভীর হাসান ছোট মনি, নাগরপুরের এমপি আহসানুল ইসলাম টিটু, ঘাটাইলের এমপি আতাউর রহমান খান, মির্জাপুরের এমপি একাব্বর হোসেন, অসীম কুমার উকিল এমপি, সংরক্ষিত ৩১ আসনের নারী এমপি মমতা হেনা লাভলী ও ২০ আসনের অপরাজিতা হক, সাবেক মন্ত্রী ক্যাপ্টেন তাজুল ইসলাম, টাঙ্গাইল জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক সাংসদ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুর রহমান খান ফারুক, সাধারণ সম্পাদক ও বাসাইল-সখিপুরের এমপি জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের উপস্থিত ছিলেন।

কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজীব প্রসাদ সাহার বাসভবনে প্রধানমন্ত্রীর সম্মানে দুপুরের খাবারের আয়োজন করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক সময়ের অতীত ঐতিহ্য সাভারের ধামরাই এলাকার ইসলামপুরের বিখ্যাত কাসা শিল্পীদের তৈরি কাসার থালায় সাদা ভাত খান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসনিা ও তার ছোট বোন শেখ রেহেনাকে কুমুদিনী প্রতিষ্ঠানের হস্ত শিল্প কারখানার তৈরি শাড়ি ও ক্রেস্ট উপহার দেওয়া হবে বলে কুমুদিনী হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে। পরে প্রধানমন্ত্রী টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও আওয়ামী লীগ নেতা এবং টাঙ্গাইলের মন্ত্রী এমপিদের সাথে মতবিনিময় সভা করেন।

বিকেল চারটায় প্রধানমন্ত্রী কুমুদিনী কমপ্লেক্স ত্যাগ করেন। প্রধানমন্ত্রীর সফরকে কেন্দ্র করে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বিশেষ নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলেন।

Check Also

আবিরের রঙে দোল উৎসব

যমুনািইনউজ বিডিঃ বসন্তের সান্নিধ্যে দোল উৎসব উদযাপনে ব্যস্ত সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। বাংলাদেশে এই উৎসবটি ‘দোলযাত্রা’, ‘দোল …

Powered by themekiller.com