Home / সারাদেশ / চলে গেলেন রাশেদ সোহরাওয়ার্দী

চলে গেলেন রাশেদ সোহরাওয়ার্দী

যমুনা নিউজ বিডি : উপমহাদেশের প্রখ্যাত রাজনৈতিক নেতা, গণতন্ত্রের মানষপুত্র-খ্যাত রাজনীতিবিদ হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর ছেলে রাশেদ সোহরাওয়ার্দী আর নেই। শুক্রবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দিনের বেলা হঠাৎ করেই তাঁর ঘনিষ্ঠজনদের কাছে আকস্মিক মৃত্যুর খবরটি এসে পৌঁছায়।

যুক্ত পাকিস্তানের একসময়ের প্রধানমন্ত্রী ও নিখিল পাকিস্তান আওয়ামী লীগের সভাপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক গুরু হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর ছেলে রাশেদ সোহরাওয়ার্দী, বৃহস্পতিবার রাতে  লন্ডনে নিজ বাসায় ঘুমের মধ্যে ইন্তেকাল করেন। তাঁর মৃত্যুর ব্যাপারে বিস্তারিত এখনো কিছু জানা যায়নি।

গত রবিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) অক্সফোর্ড ইউনিয়নে ‘আল জাজিরা : হেড টু হেড’ অনুষ্ঠান রেকর্ডকালে দর্শকসারিতে শেষবার তাঁর উপস্থিতি লক্ষ করা যায়।

মরহুমের বন্ধু যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান শরীফ রাশেদ সোহরাওয়ার্দীর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন। সুলতান শরীফ জানান, গত ৩ ফেব্রুয়ারি আল জাজিরার অনুষ্ঠানে দীর্ঘ কয়েক ঘণ্টা তাঁর সাথে আড্ডা দিয়েছি। হঠাৎ করে আজ তাঁর মৃত্যুর খবর স্তম্ভিত করে দিয়েছে। মৃত্যুপরবর্তী তাঁর মরদেহ এখন কোথায় আছে, শেষকৃত্য কখন- এগুলো এখনও কিছুই জানা যায়নি।

সুলতান শরীফ বলেন, মরহুমের পরিবার ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। সব তথ্য জানার পর সবাইকে তা জানানো হবে।

রাশেদ সোহরাওয়ার্দী রাজনীতিতে না থাকলেও বাংলাদেশের উচ্চপর্যায়ের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সাথে সম্পর্কিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, রাশেদ সোহরাওয়ার্দী রবার্ট অ্যাশবী নামে খ্যাতিমান ব্রিটিশ লেখক ও অভিনেতা হিসেবে সবার কাছে শ্রদ্ধার পাত্র ছিলেন। এই খ্যাতিমান ব্রিটিশ অভিনেতা লিজেন্ড (২০১৫), ডক্টর হু (১৯৬৩) ও জিন্নাহ (১৯৯৮) চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য বিশ্বব্যাপী ব্যাপক পরিচিত ছিলেন। তাঁর মা ছিলেন খ্যাতিমান রাশিয়ান অভিনেত্রী ভেড়া আলেক্সান্দ্রভনা ট্রিসেঙ্কো, যিনি ১৯৮৩ সালে মৃত্যুবরণ করেন।

Check Also

শিক্ষা কর্মকর্তার বদলি বাণিজ্য

যমুনা নিউজ বিডি:   নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অর্থ গ্রহণের বিনিময়ে বিধিলঙ্ঘন করে …

Powered by themekiller.com