Home / সারাদেশ / এবার এসএসসিতে সব ক্ষেত্রেই কুমিল্লা বোর্ডের ভালো ফল

এবার এসএসসিতে সব ক্ষেত্রেই কুমিল্লা বোর্ডের ভালো ফল

যমুনা নিউজ বিডি ঃ গত বছরের ফলাফল ধসের পর আবারও হেসেছে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের শিক্ষার্থীরা। পাশের হার ও জিপিএ-৫ প্রাপ্তির সংখ্যাসহ বিভাগীয় পাশের হারের ক্ষেত্রেও তৃতীয় অবস্থানে আছে কুমিল্লা বোর্ড। গত বছর কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে পাশের হার ছিলো ৫৯.০৩ শতাংশ। এ বছর তা বেড়ে পাশের হার দাড়িয়েছে ৮০.৪০ শতাংশে। ফলে গত বছরের তুলনায় ২১.৩৭ শতাংশ বেশি শিক্ষার্থী পাশ করেছে। এ বছর কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে ছেলেদের পাশের হার ৮১.২৯ শতাংশ এবং মেয়েদের পাশের হার ৭৯.৬৯ শতাংশ। আজ রবিবার বেলা সাড়ে ১২টায় কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. আসাদুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ সকল তথ্য জানানো হয়।

এদিকে পাসের হার ও জিপিএ-৫ বাড়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন কুমিল্লা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. রুহুল আমিন ভূঁইয়া। ভবিষ্যতে আরও ভালো করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তিনি।

এ বছর কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ১৭০৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে থেকে ১ লাখ ৮২ হাজার ৭১১ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। পাশ করেছে ১ লাখ ৪৬ হাজার ৮৯৭ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ৬৬ হাজার ৩৭ জন ছাত্র ও ৮০ হাজার ৮৬০ জন ছাত্রী পাশ করেছে। অকৃতকার্য হয়েছে ৩৫ হাজার ৮১৪ জন শিক্ষার্থী।

গত বছরের তুলনায় এই বছর বেড়েছে জিপিএ-৫ প্রাপ্তির সংখ্যাও। গত বছর কুমিল্লা বোর্ডে ৪ হাজার ৪৫০ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেলেও এ বছর তা বেড়ে দাড়িয়েছে ৬ হাজার ৮৬৫ জন শিক্ষার্থীতে। ফলে এ বছর ২ হাজার ৪১৫ জন শিক্ষার্থী বেশি জিপিএ-৫ পেয়েছে।

এছাড়া কুমিল্লা বোর্ডে শতভাগ পাশ করেছে ৭৪টি প্রতিষ্ঠান। গত বছর একজনও পাশ করেনি এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল ২টি। এ বছর তার অংকও শুন্যের খাতায় নেমে এসেছে।

এদিকে গত বছরের তুলনায় এ বছর বোর্ডের উল্লেখযোগ্য সাফল্যের বিষয়ে কুমিল্লা বোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (মাধ্যমিক) মো. শহিদুল ইসলাম জানান, এবার নির্বাচনী পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণদের বোর্ড পরীক্ষায় অংশ নিতে দেওয়া হয়নি। ভাল ফলাফলের জন্য আমরা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ১ হাজার ৭০০ সাতটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সাথে মতবিনিময় সভা করেছি। সব মহল এবার সচেতন হওয়ায় পাসের হার ও জিপিএ-৫ বেড়েছে। এবার শতভাগ পাস করা প্রতিষ্ঠান ৭৪টি এবং শূন্যভাগ পাস করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নেই।

এদিকে বিভাগভিত্তিক পাশের হার ও জিপিএ-৫ প্রাপ্তির দিক থেকে বিজ্ঞান শাখায় ছেলেরা এগিয়ে থাকলেও মানবিক এবং ব্যবসায় শিক্ষা শাখা উভয়টিতেই এগিয়ে আছে মেয়েরা।

এ বছর বিজ্ঞান বিভাগে ৫৪ হাজার ৮৭৯ জন পরীক্ষা দিয়ে কৃতকার্য হয়েছে ৫১ হাজার ৭৯৫ জন। পাসের হার ৯৪ দশমিক ৩৮। এতে ছেলেদের পাসের হার ৯৪ দশমিক ৫২, মেয়েদের পাসের হার ৯৪ দশমিক ২৩। বিজ্ঞানে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ হাজার ৬৪৫ জন। এর মধ্যে ছেলে ৩ হাজার ৪৩২ জন, মেয়ে ৩ হাজার ২১৩ জন।

মানবিক বিভাগে ৫১ হাজার ৭৭৭ জন পরীক্ষা দিয়ে কৃতকার্য হয়েছে ৩৫ হাজার ১৩১ জন। পাসের হার ৬৭ দশমিক ৮৫। ছেলেদের পাসের হার ৬৫ দশমিক ৫২ এবং মেয়েদের পাসের হার ৬৮ দশমিক ৫২। মানবিকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬২ জন। এর মধ্যে ১১ জন ছেলে, ৫১ জন মেয়ে।

ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে ৭৬ হাজার ৫৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে কৃতকার্য হয়েছে ৫৯ হাজার ৯৭১ জন। পাসের হার ৭৮ দশমিক ৮৫। ছেলেদের পাসের হার ৭৬ দশমিক ৭৯ ও মেয়েদের পাসের হার ৮১ দশমিক ৩৬। ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৫৮ জন। এর মধ্যে ৪৩ জন ছেলে, ১১৫ জন মেয়ে।

Check Also

মীনা দিবস উদযাপিত কচুয়া ও চিতলমারীতে

যমুনা নিউজ বিডি ঃ  ‘মায়ের দেওয়া খাবার খাই, মনের আনন্দে স্কুলে যাই’- মিড ডে মিলের …

Powered by themekiller.com