Home / ইতিহাস ও ঐতিহ্য / ঈশাখাঁ স্মৃতিবিজড়িত ৫০০ বছরের ঐতিয্যবাহী নিদর্শন গোপীনাথ জিউর আখড়া

ঈশাখাঁ স্মৃতিবিজড়িত ৫০০ বছরের ঐতিয্যবাহী নিদর্শন গোপীনাথ জিউর আখড়া

যমুনা নিউজ বিডি ঃ কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদী উপজেলা থেকে তিন কিলোমিটার উত্তরে আচমিতা ইউনিয়নের ভোগ বেতাল এলাকায় অবস্থিত গোপীনাথ জিউর মন্দির।

মোঘল সম্রাট আকবরের আমলে ১৫৭৫ খ্রীষ্টাব্দে সামন্ত রাজা নবরঙ্গ রায় এ মন্দিরটি নির্মাণ করেন। এ মন্দির সংলগ্ন বিশাল এক দিঘী রয়েছে যা ঐতিহাসিক কুটামন দিঘী হিসাবে পরিচিত।

এই কুটামন দিঘীটিও রাজা নবরঙ্গের স্মৃতিচিহ্ন বহন করে আজও কালের স্বাক্ষী হয়ে দাড়িয়ে আছে। দিঘীটি প্রায় ৩০ একর, যা এই মন্দিরটিকে করে তুলেছে আকর্ষনীয়। এ মন্দিরটিতে ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যেও প্রাচীণ মন্দিরের সাদৃশ্য লক্ষ্য করা যায়। বর্তমানে মন্দিরের জায়গার পরিমান ২৫ একরেরও বেশি।

মসনদে আলা ঈশা খাঁর দূর্গে মানসিংহ আক্রমন করলে মানসিংহের মোঘল বাহিনী ঈশাখাঁর নিকট পরাজয় বরণ করে আর ঈশা খাঁর এই জয়লাভের পর সবচেয়ে বড় বিজয় উল্লাস হয় গোপীনাথ জিউর আখড়ার মেলায়।

গোপীনাথ আখড়ার প্রবেশ পথে রয়েছে একটি ব্রিজ যা পানাম নগরীর নকশায় তৈরি। এ আখড়ায় রয়েছে দোলমঞ্চ, মূলমন্দির, আদি মন্দির, ঝুলনমন্দির ও ৩টি বড়পুকুর।

গোপীনাথ মন্দিরে পূর্ববঙ্গের সর্বপ্রথম ও সর্ববৃহৎ রথযাত্রা অনুষ্ঠিতহয়। রথ অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে বৃহৎ মেলা অনুষ্ঠিত হয়। এ মন্দিরটি ছিল এক সময় বাংলাদেশী সনাতন ধর্মের মানুষের অন্যতম একটি তীর্থস্থান। বর্তমানে দেশ বিদেশের হাজারো মানুষ আসে এই মন্দির ও মেলা পরিদর্শন করতে।

প্রাচীণ এই মন্দিরটি সংস্কার করা হলে এর সৌন্দর্য বৃদ্ধি পাবে বহুগুন। এলাবাবাসীর মতে, একে পর্যটন কেন্দ্র হিসাবে গড়ে তোলা হলে সরকার যেমন পাবে রাজস্ব তেমনি দেশবাসীও ৫০০ বছরের ইতিহাস ও ঐতিয্য সর্ম্পকে জানতে পারবে।

Check Also

কুমিল্লায় চার বন্ধু মিলে নারী শ্রমিককে ধর্ষণ

যমুনা নিউজ বিডি ঃ কুমিল্লায় এক নারী শ্রমিককে চার বন্ধু মিলে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। …

Powered by themekiller.com