Home / অর্থনীতি / ইতিবাচক ধারায় রেমিট্যান্স

ইতিবাচক ধারায় রেমিট্যান্স

যমুনা নিউজ বিডি ঃ গত অর্থবছরে রেমিট্যান্স কমলেও সম্প্রতি ইতিবাচক ধারায় ফিরেছে প্রবাসীদের থেকে আসা অর্থ। ডলারের দর ঊর্ধ্বমুখী থাকায় সম্প্রতি প্রবাসী আয় বাড়ছে বলে মনে করছেন ব্যাংক কর্মকর্তারা। এছাড়া হুন্ডি প্রতিরোধে মোবাইল ব্যাংকিং সেবার লেনদেনে কড়াকড়ি আরোপসহ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিভিন্ন উদ্যোগও ভালো ফল দিচ্ছে।

চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে (জুলাই-এপ্রিল) এক হাজার ২০৮ কোটি ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা, যা গত অর্থবছরের একই সময়ে আসা রেমিট্যান্সের তুলনায় ১৭.৫০ শতাংশ বেশি। ২০১৬-১৭ অর্থবছরের জুলাই-এপ্রিল সময়ে রেমিট্যান্স এসেছিল এক হাজার ২৮ কোটি ৭২ লাখ ডলার।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ করা পরিসংখ্যান থেকে দেখা যায়, সদ্য বিদায়ী এপ্রিলে ১৩২ কোটি ৭১ লাখ ডলারের সমপরিমাণ রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে অবস্থানরত প্রবাসীরা, যা এর আগের মাস মার্চে আসার রেমিট্যান্সের তুলনায় দুই কোটি ৭৪ লাখ ডলার বেশি এবং গত বছরের এপ্রিলের তুলনায় ২৩ কোটি ৪৫ লাখ ডলার বেশি।

গত মার্চে রেমিট্যান্স এসেছিল ১২৯ কোটি ৯৭ লাখ ডলার এবং গত বছরের এপ্রিলে রেমিট্যান্স এসেছিল ১০৯ কোটি ২৬ লাখ ডলার।

একক মাস হিসেবে এপ্রিলে আসা রেমিট্যান্স এ অর্থবছরের মধ্যে তৃতীয় সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স। গত আগস্টে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স এসেছিল ১৪১ কোটি ৮৫ লাখ ডলার এবং দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স এসেছিল গত জানুয়ারিতে, ১৩৭ কোটি ৯৭ লাখ ডলার।

প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যায়, বিদায়ী ২০১৬-১৭ অর্থবছরের পুরো সময়ে প্রবাসীরা এক হাজার ২৭৬ কোটি ৯৪ লাখ ডলারের সমপরিমাণ রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন, যা এর আগের ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ছিল এক হাজার ৪৯২ কোটি ৬২ লাখ ডলার। সে হিসাবে গত অর্থবছরে রেমিট্যান্স কমেছিল ২১৬ কোটি ১৭ লাখ ডলার বা ১৪.৪৭ শতাংশ।

বর্তমানে ব্যাংক ভেদে এক ডলারের বিপরীতে ৮৪ থেকে ৮৫ টাকা পাওয়া যাচ্ছে। অথচ দীর্ঘদিন ধরে ডলারের দর ৮১ থেকে ৮২ টাকার মধ্যে ওঠানামা করছিল। তখন থেকেই রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়াতে বৈদেশিক মুদ্রার বিনিময় হার বাড়ানোর তাগিদ দিয়ে আসছিলেন প্রবাসীসহ সংশ্লিষ্ট সব মহল।

পরিসংখ্যান বিশ্লেষণে দেখা যায়, এপ্রিলে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে রেমিট্যান্স আহরিত হয়েছে ৩২ কোটি ৬৫ লাখ ডলার। বিশেষায়িত দুটি ব্যাংকের মাধ্যমে এক কোটি ৯ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে। এ ছাড়া বেসরকারি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে ৯৭ কোটি ৫৫ লাখ ডলার এবং বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এক কোটি ৪১ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে।

এপ্রিলে বেসরকারি ইসলামী ব্যাংকের রেমিট্যান্স কমেছে। গত মার্চে এই ব্যাংকটির মাধ্যমে রেমিট্যান্স আহরিত হয়েছিল ২৮ কোটি ২৫ লাখ ডলার। অন্যদিকে গত এপ্রিলে সামগ্রিকভাবে রেমিট্যান্স বাড়লেও ইসলামী ব্যাংকের রেমিট্যান্স কমেছে। এই ব্যাংকটির মাধ্যমে গত এপ্রিলে রেমিট্যান্স এসেছে ২৬ কোটি ৬১ লাখ ডলার।

এপ্রিলে রেমিট্যান্স আনার দিক দিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে অগ্রণী ব্যাংক। এই ব্যাংকটির মাধ্যমে ১৩ কোটি তিন লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে এপ্রিলে। এ ছাড়া সোনালী ব্যাংকের মাধ্যমে ১০ কোটি সাত লাখ ডলার এবং জনতা ব্যাংকের মাধ্যমে আট কোটি ডলার রেমিট্যান্স এসেছে বিদায়ী মাসটিতে।

Check Also

পোশাক খাতে অর্থায়নে চ্যালেঞ্জের মুখে ব্যাংক

যমুনা নিউজ বিডি ঃ রপ্তানি আয়ের প্রধান উৎস তৈরি পোশাক খাতে অর্থায়ন করতে গিয়ে নানাবিধ …

Powered by themekiller.com