Breaking News
Home / সারাদেশ / অর্থাভাবে চিকিৎসা ব্যহত দুচোখেই দেখতে চায় রিপন

অর্থাভাবে চিকিৎসা ব্যহত দুচোখেই দেখতে চায় রিপন

যমুনা নিউজ বিডি:  মেধাবী ছাত্র রিপন সাহার দুচোখভরা স্বপ্ন। কিন্তু বয়স বাড়ার সঙ্গেই তার সেই স্বপ্ন ফিকে হয়ে যাচ্ছে। ১৭ বছরে পা দিয়ে জীবন হয়েছে বিষণ্ন। কারণ, একচোখে পৃথিবীর আলো দেখলেও আরেক চোখ থেকেও যেন অন্ধ। ছোটবেলায় জ্বরে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে বা পাশের চোখটা দিনদিন ঢেকে যাচ্ছে  মাংসপিণ্ডে। ফলে দুচোখের দৃষ্টি স্বাভাবিক থাকলেও এখন একচোখে দেখে পথ চলতে হয়। নানা বাধা বিপত্তিকে উপেক্ষা করে পথ চলতে চলতে রিপন এখন ক্লান্ত। সে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার ছোটবাইশদিয়া বিজনেস ম্যানেজমেন্ট (বিএম) কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র।

রিপনের বয়স তখন এক বছর। একদিন গায়ে প্রচণ্ড জ্বর আসে এর পর মুখের বা পাশে মাংস ফুলে ওঠে। ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে মাংসপিণ্ড। এরপর ডাক্তার দেখানো হয়। কিন্তু কোনো পরিবর্তন হয়নি। এখন বা পাশের চোখটা পুরোপুরি ঢেকে গেছে। মুখ আর থুতনির পাশেও মাংস বেড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন রিপনের মা শেপালি রাণী।

উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের কোড়ালিয়া গ্রামের দিনমজুর জয়দেব সাহার বড় ছেলে রিপন। অভাব অনটনের সংসার। একার উপার্জন করে কোনোমতে সংসার চালে। এর ওপর ছেলেদের পড়ার খরচসহ সাংসারিক খরচা, চিকিৎসার জন্য তিন লক্ষাধিক টাকা যোগান দেওয়া দুঃসাধ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাইতো বাবার পক্ষে তার চিকিৎসা চালানো সম্ভব না হওয়ায় বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের জন্য হাত বাড়াচ্ছেন।

রিপনের বাবা জয়দেব সাহা বলেন, মাসখানেক আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়েছি। তারা বলেছেন তিন ধাপে অস্ত্রোপচার করে চিকিৎসা করতে হবে। এতে প্রায় ৩ লাখ টাকা খরচা হতে পারে। আমি অসহায় মানুষ, এত টাকা আমার পক্ষে বহন করা অসাধ্য হয়ে পড়েছে। ছেলের চিকিৎসা করানোও জরুরি।

সমাজের আরো কয়েকটি সুস্থ-সবল কিশোরের মতো রিপনও দুচোখে সমান দৃষ্টি পাওয়ার আক্ষেপ রয়েছে। তাই সে সমাজের নানা শ্রেণির মানুষসহ বিত্তবানদের কাছে সহোযোগিতা নিয়ে সুস্থ হতে চায়।

সহযোগিতার জন্য যোগাযোগ : ০১৭৮৫৪২০১৭৩ (রিপনের বাবা জয়দেব সাহা মোবাইল নম্বর)  

Check Also

সাপাহারে ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনটি পদে ১৪ জন প্রার্থীর মনোনয়ন জমা

হাফিজুল হক, সাপাহার নওগাঁ প্রতিনিধিঃ- নওগাঁ সাপাহারে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে ৫ম উপজেলা পরিষদ …

Powered by themekiller.com